ইইউকে -সুষ্ঠু নিরপক্ষ নির্বাচনের আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর

তিনি আরও বলেছেন, রাষ্ট্রক্ষমতা ক্যান্টনমেন্টে অবরুদ্ধ থাকার সময় আওয়ামী লীগকে জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকারের সুরক্ষায় আন্দোলন করতে হয়েছে।

তিরিঙ্ক বৃহস্পতিবার (৫ জুলাই) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানে ইইউ প্রতিনিধির আশাবাদের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী এ আশ্বাস দেন। বৈঠকে বিদ্যমান পারস্পরিক হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্কে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

নির্বাচন কমিশন এবং স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সের ব্যবস্থা ও ছবিসহ ভোটার তালিকা তৈরি করতে সহায়তার জন্য ইইউকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, সরকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে এবং পূর্ব নির্ধারিত লক্ষ্যেই সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন হচ্ছে।

প্রথম মেয়াদে ব্রাসেলসে ইইউ সদরদপ্তর পরিদর্শনের কথা স্মরণ করে বাংলাদেশকে ইইউ’র অব্যাহত সমর্থনের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনায় সরকারপ্রধান বলেন, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিরাট বোঝা হয়ে দেখা দিয়েছে। তাদের নিরাপদ আশ্রয়, খাদ্য ও স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে প্রশাসন, পুলিশ ও সেনাবাহিনী, বিজিবিসহ অন্য সংস্থাগুলো নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করছে।
প্রধানমন্ত্রী শরণার্থী ইস্যুতে ইইউ’র ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, এই সমস্যা সমাধানে প্রতিবেশি মিয়ানমার ও তাদের সীমান্তবর্তী দেশের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

বর্তমান সরকারের আমলে পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরি দেওয়ার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা জানান, পোশাক শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির জন্য তিনি (প্রধানমন্ত্রী) নিজে মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। মিল-কারখানায় সংকট তৈরিতে বাইরের অপেশাদার কায়েমী স্বার্থান্বেষী মহলের অপতৎপরতা সত্ত্বেও এ খাতের উন্নয়নে গার্মেন্ট।

মতামত দিন